রানার প্রতিবেদন : পাকিস্তান জুড়ে চরম সঙ্কট টমেটোর। কারন, ভারত থেকে টমেটো সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। দুদেশের মধ্যে তিক্ততা শুরু হবার পর দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বন্ধ। পাকিস্তান নিজেই নিজের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে ভারতীয় পণ্যের জন্য। ফলে সর্বত্র পণ্যের হাহাকার। এমনি চরম সঙ্কট তৈরি হয়েছে জীবনদায়ী ওষুধ নিয়েও। কিন্তু দৈনিক খাবারে টমেটোর অভাবে আজ কাতর গোটা পাকিস্তান। টমেটোর দাম মধ্যবিত্তেরও ধরা ছোয়ার বাইরে। এই অবস্থায় পাকিস্তানকে আশ্বস্ত করে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে চিঠি দিলেন মধ্যপ্রদেশের ঝাবুয়ার কৃষক সমিতির সদস্যরা। তবে শর্তসাপেক্ষে।


চিঠিতে বলা হয়েছে, আমরা যে পরিমান টমেটো উৎপাদন করি, তাতে চাইলে পাকিস্তানকে টমেটো দিয়ে ভরিয়ে দিতে পারবো। আপনি চাইলেই আমরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে রাজি, কিন্তু আপনাকে শুধু কাশ্মীরের যে অংশটা দখলে রেখেছেন সেই অংশটুকু ফেরত দিতে হবে। আর দাউদ ইব্রাহিমকে ভারত সরকারের হাতে তুলে দিতে হবে। এটুকু করলেই আমরা আপনাদের টমেটোয় ভরিয়ে দেব।


পাকিস্তানে অন্যতম সবজি টমেটোর অকাল এখন এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, বিয়ের কনে সোনার হার না পড়ে টমেটোর মালা পরে বসছেন ছাদনাতলায়। সেই ছবি ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে দুনিয়া জুড়ে। সরকার দেশবাসীকে জানাতে পারছে না, কবে টমেটো পাওয়া যাবে। কবে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নাগালের মধ্যে আসবে। পরিস্থিতি এমন যে এই ইস্যুতে ইমরানের বিরুদ্ধে তীব্র জনমত গড়ে উঠেছে পাকিস্তানে। তাই ইমরানকে রক্ষা করতে এগিয়ে এলো ঝাবুয়ার কৃষকরা, যদিও শর্ত সাপেক্ষে।