রানার প্রতিবেদন : একেবারে অপ্রত্যাশিত ভাবে শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে বোমা ফাটালেন বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জি। রবিবার পূর্ব বর্ধমানে দলীয় সভা থেকে প্রকাশ্যে তিনি দেবশ্রী রায়ের হয়ে সওয়াল করেন। বলেন, “দেবশ্রী রায় একজন স্বনামধন্য নায়িকা, রাজনীতিতে অভিজ্ঞ এবং একজন বিধায়ক, তাকে দলে না নেবার কোনও কারন নেই। উনি এলে দলের উপকার হবে। অন্যদিকে একজন এসেছেন বৈশাখী ব্যানার্জি। তিনি রাজনীতিতে একেবারেই আনকোরা।

আরও পড়ুন : বাংলাদেশিদের চরিত্র নিয়ে লাগামছাড়া মন্তব্য তসলিমার, বিতর্কের ঝড়

কোনও অভিজ্ঞতাই নেই তার। তিনি আবার শর্ত দিয়েছেন, দেবশ্রীকে দলে নেওয়া যাবে না। যিনি শর্ত দিচ্ছেন তাকে নিয়ে দলের কি লাভ হবে? ওনাকেই বরং মানুষ মেনে নেবে না। যিনি একজনের নামে সিঁদুর পড়েন আর ঘর করেন আর এক জনের সঙ্গে। শোভন-বৈশাখীর এই পরকীয়া সমাজ ভালো ভাবে নেবে না। তার থেকে বরং দেবশ্রীকে নেওয়া হোক। তাতে যদি বৈশাখী দল ছেড়ে চলে যায়, চলে যাক। সঙ্গে যদি শোভনও চলে যেতে চায় তাহলেও কোনও অসুবিধা নেই।” বলেন , দেবশ্রী অত্যন্ত ভালো মেয়ে, আমার প্রথম ছবির নায়িকা ছিলেন তিনি।


শোভন-দেবশ্রীকে নিয়ে দলে বিতর্ক হচ্ছে বিস্তর। দলে নাম লেখাবার পর থেকে বৈশাখী যেভাবে প্রকাশ্যে দলের রাজ্য নেতৃত্বকে বারবার অস্বস্তিতে ফেলছেন তা ভালোভাবে নিতে পারছেন না দলীয় নেতৃত্বের একাংশ। তাই দল ঠিক করেছে, বৈশাখী যতই শোভনের সম মর্যাদা দাবি করুন না কেন, দল শোভন- বৈশাখীকে আলাদা করেই দেখবে এবং সেই অনুযায়ী তাদের আলাদা করেই গুরুত্ব দেওয়া হবে। বিজেপির এই আচরণ যদি ভালো না লাগে তবে তাঁরা তাদের মত সিধান্ত নেবেন, দলের সেক্ষেত্রে কোনও কিছু করার নেই। কিন্তু আজ বিষয়টিকে সামনে নিয়ে এলেন জয় ব্যানার্জি।

আরও পড়ুন : বাংলাদেশিদের চরিত্র নিয়ে লাগামছাড়া মন্তব্য তসলিমার, বিতর্কের ঝড়

দলের অন্যতম নেতা জয় এবার লোকসভা ভোটে উলুবেরিয়া কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। জয়ের এই মন্তব্য থেকে যে প্রশ্ন সামনে আসছে তাহলো, এটাকি জয়ের মুখ ফসকে যাওয়া মন্তব্য? এটা কি নিছক তার একান্ত ব্যক্তিগত মনোভাব নাকি এর পেছনে দলের মদত রয়েছে কিংবা এটা দলেরই পরিকল্পনা মাফিক কোনও কৌশল। দুদিন আগেই প্রকাশ্যে বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জির বিরুদ্ধে একগাদা “আপত্তিকর” মন্তব্য করেছেন শোভন। এরপরই প্রশ্ন উঠেছে, এই জিনিস চলতে দিলে কোথায় গিয়ে থামবেন শোভন-বৈশাখী? নাকি তার আগে দলেরই উচিত তাদের থামিয়ে দেওয়া। এবার দেখার জয়ের মন্তব্যের পর কোথাকার জল কোথায় গড়ায়।