রানার প্রতিবেদন : রোজ ভ্যালি দুর্নীতি মামলায় এবার জড়িয়ে পড়লো শাহরুখ খানের নাম। টাকা তছরুপ মামলায় ইতিমধ্যে শাহরুখের রেড চিলি সংস্থার অন্যতম কর্তা ভেঙ্কই মাইসরকে একপ্রস্থ জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন ইডি’র তদন্তকারীরা। টানা দুবছর আইপিএল-এ রেড চিলিকে স্পনসর করেছে রোজভ্যালি। সেই সংস্থার হয়ে প্রচার করেছেন শাহরুখ খান। কোম্পানির জন্য বিজ্ঞাপনের শুটিংও করেছেন তিনি। এমনকি মোটা টাকা খরচে আলাদাভাবে রোজভ্যালি ইডেনে স্ট্যান্ড ভাড়া করেছিল রেড চিলির জন্য।

আরও পড়ুন : নদিয়ায় মুকুলকে ঘিরে তৃণমূলের বিক্ষোভ, কালো পতাকা, উত্তেজনা, পুলিশের হস্তক্ষেপ

সেই স্ট্যান্ডে বরাদ্দ ছিল ২৫টি আসন। গোয়েন্দারা সন্ধান করছেন, কত টাকা কিভাবে লেনাদেনা হয়েছে রেড চিলি এবং রোজভ্যালির মধ্যে। প্রায় ২৭ টি সংস্থার মাধ্যমে নানান রকম ব্যবসা ফেদেছিল রোজভ্যালির মালিক গৌতম কুন্ডু। স্পঞ্জি স্কীমের মাধ্যমে তারা মানুষের কাছ থেকে সংগ্ৰহ করেছিল প্রায় ১৮০০০ কোটি টাকা। সেই টাকা বিনিয়োগ করে হরেক রকমের ব্যবসা ফেদে বসেছিল রোজভ্যালি।


রেড চিলির আরও দুই মালিকের নাম জুহি চাওলা এবং তার স্বামী জয় মেহেতা। ২০১২-১৩ এই দু’বছর মোটা টাকা রেড চিলিকে দিয়েছিল গৌতম কুন্ডুর সংস্থা। ইডি আধিকারিকরা নির্দিষ্ট করে টাকার অংক প্রকাশ করেননি, শুধু জানিয়েছেন রোজ ভ্যালির বেশ কয়েক কোটি টাকা রেড চিলির ঘরে ঢুকেছিল ওই দুই বছরে। রোজভ্যালির স্পঞ্জি স্কীমের নেটওয়ার্ক ছড়িয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ,অসম, ত্রিপুরা এবং ঝাড়খন্ড জুড়ে। এই টাকা তছরূপ মামলা আলাদা ভাবে তদন্ত করছে সিবিআই। ইডির দাবি, রোজভ্যালির থেকে প্রচারের কাজে মোটা টাকা নিয়েছিলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি এবং অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ইতিমধ্যে তাদের দুজনকে ডেকেই একপ্রস্থ জেরা করেছেন ইডি আধিকারিকরা। এবার কি তবে শাহরুখ খানের পালা ? এই সন্দেহে জোরালো হচ্ছে ক্রমশ।