রানার প্রতিবেদন : আর এক দফা বিতর্ক যেন ওঁৎ পেতে আছে। দুর্গা পূজা করে মৌলবাদীদের চরম রোসে পড়া নুসরত এবার করলেন চাঁদের পুজো। পালন করলেন করবা চৌথ। স্বামী নিখিল জৈনের দীর্ঘায়ু কামনা করলেন, চাঁদের আলোয় চালুনিতে দেখলেন স্বামীর মুখ, তারপর উপোষ ভাঙলেন টলিউডের অভিনেত্রী। সব নিয়ম মানলেন নিষ্ঠার সঙ্গে।

আরও পড়ুন : কাশ্মীরে রক্তারক্তি চায় পাকিস্তান, বিপুল অর্থ খরচে ভাড়াটিয়া খুনি

তারপর সেই ছবি পোস্ট করে দিলেন নিজের ইন্সট্রাগ্রামে। অর্থাৎ আর এক দফা বিতর্ক যেন উস্কে দিলেন অভিনেত্রী। যদিও নুসরত নিজেই জানিয়েছেন, বিতর্ককে আদৌ আমল দেন না তিনি। তাঁর মন যা চায় তিনি সেটা করতেই ভালোবাসেন। নিজেকে মনে করেন একজন আপদমস্তক বাঙালি এবং ভারতীয়। সুতরাং বাংলা এবং ভারতের যে সংস্কৃতি সেটাকেই আকড়ে ধরে বাঁচতে চান তিনি।


বিয়ের পর থেকেই লাগাতার বিতর্কের পাকে জড়িয়ে পড়ছেন নুসরত। বিয়ের পর সাংসদ হিসাবে লোকসভায় শপথ নেবার দিন মাথায় সিঁদুর আর গলায় মঙ্গলসূত্র পরে প্রথম বিতর্কের জন্ম দেন তিনি। তার কড়া সমালোচনা করে ধর্মীয় মৌলবাদীরা। তারপর দুর্গাপূজায় অষ্টমীর দিন নিখিল জৈনকে পাশে নিয়ে মন্ত্রোচ্চারণ করে অঞ্জলি দেন নুসরত। সেই ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। উত্তরপ্রদেশের দেওবন্দের নেতা নুসরাতকে “ধর্ম বিরোধী” আচরণের জন্য কঠোর ভাষায় নিন্দা করার পরই সামাজিক মাধ্যমে উগ্র ধর্মীয় বিশ্বাসীরা নুসরতকে হুমকি দিতে শুরু করে। সেই সময় সব হুমকি-সমালোচনা উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেছিলেন, আমি ভগবানের বিশেষ সন্তান। আমি ধর্মে-ধর্মে শান্তির পরিবেশ তৈরি জন্যই আজীবন কাজ করে যাবো।