রানার প্রতিবেদন : ভারতীয় হাইকমিশনার দেওয়া পার্টি ভেস্তে দিতে গায়ের জোরে খাটালো পাকিস্তান সরকার। পাকিস্তানে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার অজয় বাসেরিয়া সৌজন্য দেখিয়ে ইসলামাবাদে আয়োজন করেছিলেন ইফতার পার্টি। কিন্তু অভিযোগ সরকারি এজেন্সির নিরাপত্তা রক্ষীরা এই ইফতার পার্টি বন্ধ করে দেবার জন্য পার্টিতে আগত অতিথিদের শারীরিকভাবে হেনস্থা করে ইফতার থেকে বার করে দিয়ে অনুষ্ঠান ভণ্ডুল করে দেয়। ঘটনায় অতিথিদের কাছে ক্ষমা চেয়ে ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন ভারতীয় হাই কমিশনার।


ঘটনাটি ঘটে শনিবার বিকেলে। ইসলামাবাদের সেরেনা হোটেলে আয়োজন করা হয়েছিল ইফতারের। অভিযোগ , আমন্ত্রিত অতিথিদের ফোনে হুমকি দেওয়া হয়, তারা যাতে কোনও অবস্থায় ভারতীয়দের দেওয়া ইফতারে না যান। হুমকি উপেক্ষা করেই অনেকেই এসেছিলেন আমন্ত্রণ রক্ষা করতে। যারা এসেছিলেন তাদের অনেককেই নিরাপত্তা রক্ষীরা জোর করে গেট থেকেই তাড়িয়ে দেয়। যারা কোনও মতে ভেতরে ঢুকে পড়েছিলেন তাদের অনুষ্ঠান হল থেকে বলপূর্বক বার করে দেওয়া হয়।


ঘটনায় প্রচন্ড ক্ষুব্ধ নয়াদিল্লি। ঘটনার পর মুখ খোলেন ভারতীয় হাইকমিশনার অজয় বাসেরিয়া। তিনি বলেছেন, ইফতার পার্টিকে ঘিরে যে ঘটনা ঘটানো হলো তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। এই ঘটনা ঘটিয়ে তারা শুধু যে দুদেশের মধ্যে কূটনৈতিক শিষ্টাচারকেই আঘাত করেছে তাই নয়, একই সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কেও আঘাত করেছে তারা। এই ঘটনা অত্যন্ত নিন্দনীয়, যা ভারত-পাক সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে। দিল্লির কূটনৈতিক মহল মনে করে, পাকিস্তান এখনো পায়ে পা দিয়েই তিক্ততা করে যাচ্ছে। যদিও একাংশ কূটনীতিক বলছেন, মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে সমস্ত প্রতিবেশী দেশের প্রধানদের আমন্ত্রণ করা হলেও পাক প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানায়নি দিল্লি। এরপর হাইকমিশনের এই অনুষ্ঠানকে ভেস্তে দিয়ে তারাও বার্তা দিল, দিল্লি সৌজন্য দেখায়নি, তারাও সৌজন্যের ধার ধারেনা। যদিও ইসলামাবাদ এখনো এই ঘটনা নিয়ে মুখ খোলেনি।