রানার বাংলা : শেষপর্য্ন্ত চরম হুঁশিয়ারি দিল ফাইন্যান্সিয়াল একশন টাস্ক ফোর্স। সংক্ষেপে এই আন্তর্জাতিক সংস্থাকে বলা এফএটিএফ। প্যারিসে পাঁচ দিনের অধিবেশন শেষে পাকিস্তানকে চরম পত্র দিয়ে তারা জানিয়েছে, যে কোনও মূল্যে সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সাহায্য বন্ধ করতে হবে। এটাই চূড়ান্ত সতর্কিকরন, এরপর পাকিস্তানকে আর সতর্ক করা হবে না। চার মাস নজর রাখা হবে, এই সময়ের মধ্যে পাকিস্তান যদি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলিকে দেওয়া অর্থ সাহায্য বন্ধ করতে না পারে তবে তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। নিয়ম অনুযায়ী, একবার কালো তালিকাভুক্ত হওয়া মানে, সেই দেশের জন্য রাষ্ট্রসংঘ, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, বিশ্বব্যাংক সহ বহু আন্তর্জাতিক সংস্থার দরজা বন্ধ হয়ে যাবে। সব ধরণের আর্থিক সহায়তা থেকে বঞ্চিত হবে পাকিস্তান।


চরম পত্রে বলা হয়েছে, আগামী ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময় দেওয়া হবে পাকিস্তানকে। আর এটাই শেষ সুযোগ। এরপর তারা ব্যর্থ হলে স্থান হবে কালো তালিকায়। বর্তমানে পাকিস্তান আছে ধূসর তালিকায়। গত বছর পাকিস্তানকে সতর্ক করে ২৭ টি শর্ত মানতে বলা হয়েছিল। পাকিস্তান ২৪ শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। এরপরই তাদের ধূসর তালিকায় রেখে আর এক দফা সতর্ক করা হয়। ২০৭ টি দেশের প্রতিনিধিরা সম্মেলনে জমায়েত হয়েছিলেন প্যারিসে। এই সম্মেলন থেকেই পাকিস্তানকে কালো তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবি ওঠে। এই দাবিতে জোরালো সওয়াল করেন ভারতের প্রতিনিধি। কিন্তু চিন, তুরস্ক এবং মালয়েশিয়া এই তিন দেশ পাকিস্তানের পক্ষে দাঁড়িয়ে যাওয়ায়, আপাতত চূড়ান্ত পদক্ষেপের জন্য চার মাস সময় মঞ্জুর করা হয় ইসলামবাদকে।